ক্যালিফোর্নিয়া বার্কলি ভার্সিটিতে বঙ্গবন্ধুর নামে গবেষণা পুরস্কার

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের রাজনৈতিক ও আর্থ-সামাজিক দর্শন বিশ্বের কাছে পৌঁছে দেওয়ার জন্য যুক্তরাষ্ট্র বঙ্গবন্ধু পরিষদ ক্যালিফোর্নিয়া শাখা এবং ইউনিভার্সিটি অব ক্যালিফোর্নিয়া বার্কলির (টঈ ইবৎশবষবু) মধ্যে চুক্তি হয়েছে। ২১ জুলাই চুক্তি সইয়ের মাধ্যমে এই প্রথম আন্তর্জাতিকভাবে বঙ্গবন্ধুর নামে গবেষণা পুরস্কার প্রবর্তন করা হলো।

চুক্তি অনুযায়ী বঙ্গবন্ধু পরিষদ ক্যালিফোর্নিয়া শাখা বার্কলি ফাউন্ডেশনকে প্রতি বছর ২০,০০০ ডলার অনুদান দেবে। বার্কলির সাউথ এশিয়া স্টাডিস গবেষণার জন্য আবেদন গ্রহণ করবে। যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপের সব এক্রিডেটেড বিশ্ববিদ্যালয়ের মাস্টার্স, পিএইচডি অধ্যায়নরত শিক্ষার্থী এবং সেসব বিশ্ববিদ্যালয়ের জুনিয়র ফ্যাকাল্টি বঙ্গবন্ধু অথবা বাংলাদেশের ওপর গবেষণায় ইচ্ছা প্রকাশ করে আবেদন করতে পারবে। বার্কলির গবেষণাবিষয়ক ভাইস চ্যান্সেলরের ডিপার্টমেন্ট এ গবেষণা তদারকি করবে। গবেষণাবিষয়ক যাবতীয় খরচ বঙ্গবন্ধু পরিষদ ক্যালিফোর্নিয়া শাখার দেওয়া অনুদান থেকে দেওয়া হবে। বার্কলি কর্তৃপক্ষ গবেষকদের ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান রিসার্চ অ্যাওয়ার্ড’ ভূষিত করবে। সংক্ষেপে এ অ্যাওয়ার্ড সারা বিশ্বে ‘বঙ্গবন্ধু রিসার্চ অ্যাওয়ার্ড’ নামে পরিচিত হবে এবং তা প্রতি বছর সাউথ এশিয়া স্টাডিসে প্রকাশনায় বিশদভাবে প্রকাশিত হবে।

বঙ্গবন্ধু পরিষদের পক্ষ থেকে চুক্তিটি স্বাক্ষর করেন ক্যালিফোর্নিয়া শাখার সভাপতি নজরুল আলম ও সাধারণ সম্পাদক প্রকৌশলী রানা হাসান মাহমুদ। ইউনিভার্সিটি অব ক্যালিফোর্নিয়া, বার্কলির পক্ষ থেকে চুক্তিটি স্বাক্ষর করেন রানজ এইচ কাটজ (ভিসি ফর রিচার্স), ন্যান্সি নুচ্চি ম্যাককেনি (এভিপি, ইউনিভার্সিটি অব ক্যালিফোর্নিয়া বার্কলি ফাউন্ডেশন) ও সুগত রায় (ইন্টেরিম ডিরেক্টর, ইন্সটিটিউট অব সাউথ এশিয়া স্টাডিজ)। যুক্তরাষ্ট্র বঙ্গবন্ধু পরিষদ, ক্যালিফোর্নিয়া এ প্রকল্পটি সর্বসাধারণকে জানানোর জন্য সোমবার সংবাদ সম্মেলন আয়োজন করে।

সংবাদ সম্মেলনে যুক্তরাষ্ট্র বঙ্গবন্ধু পরিষদের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা ও একুশে পদকপ্রাপ্ত লেখক ড. নূরান নবী বঙ্গবন্ধু পরিষদ ক্যালিফোর্নিয়া শাখার নেওয়া এ পদক্ষেপ ‘ঐতিহাসিক’ বলে বর্ণনা করেছেন।

বঙ্গবন্ধুর জীবন রক্ষা করতে গিয়ে শহিদ কর্নেল জামিলউদ্দিন আহমদের মেয়ে আফরোজা জামিল কঙ্কা বলেন, এর মাধ্যমে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও অবদান সারা বিশ্বের মানুষ জানতে পারবে।

দৈনিক ভোরের কাগজের সম্পাদক শ্যামল দত্ত প্রবাসীদের পক্ষ থেকে বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশকে বিশ্বের কাছে তুলে ধরার ক্ষেত্রে এ উদ্যোগটিকে একটি বিশাল পদক্ষেপ হিসেবে চিহ্নিত করেছেন।


Recent Comments

Leave Comments

Login first then comment.
Top